সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ সিরাজগঞ্জের সব খবর, সবার আগেঃ SirajganjKantho.com

www.SirajganjKantho.com

উল্লাপাড়ায় মেয়ের লাঞ্চনার প্রতিকার করতে গিয়ে পিতা সন্ত্রাসী হামলার শিকার
রায়হান আলী, করেসপন্ডেন্ট(উল্লাপাড়া) ১৩-০৯-২০১৯ ০৮:৪৫ পূর্বাহ্ন প্রকাশিতঃ প্রিন্ট সময়কাল Nov 23, 2019 02:20 AM

উল্লাপাড়া (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ উল্লাপাড়ায় নিজ মেয়ের উত্ত্যক্তকারীর অনৈতিক কর্মকান্ডের প্রতিকার চেয়ে আদালতে মামলা করার অপরাধে মোঃ শামছুল হক সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছেন । তিনি উল্লাপাড়া উপজেলার পঞ্চক্রোশী ইউনিয়নের বন্যাকান্দি গ্রামের মৃত আবুল হোসেনের ছেলে। বর্তমানে শামছুল হক গুরতর আহত অবস্থায় সিরাজগঞ্জ বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তিনি পেশায় একজন দিনমজুর।

শামছুল হক উল্লাপাড়া উপজেলা নিবার্হী কর্মকতার্র কাছে গত ৮ সেপ্টেম্বর দেওয়া অভিযোগপত্রে উল্লেখ করেছেন, তার মেয়ে শারমিনকে কয়েক মাস আগে রাস্তার মধ্যে একই গ্রামের মোঃ শহিদুল ইসলামের ছেলে লিটন উত্ত্যক্ত করে আসছিল। মেয়েটিকে উত্ত্যক্তকারীর হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য গ্রাম ছেড়ে প্রায় ৪মাস আগে ঢাকায় চলে যেতে হয়। শারমিন ঢাকায় গিয়ে একটি পোশাক তৈরির কারখানায় (গার্মেন্টস) চাকরি নেয়। মেয়েটি ঢাকায় যাবার পর উত্ত্যক্তকারী লিটনও কয়েক দিনের ব্যবধানে ঢাকায় গিয়ে একই পোশাক তৈরির কারখানায় চাকরি নেয়। এখানেও লিটন শারমিনকে উত্ত্যক্ত করত এবং জোড় করে অনৈতিক কার্যকলাপে লিপ্ত হওয়ার জন্য বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি দেখাত। কয়েকদিন লিটনের হাতে শারমিন লাঞ্চিত হয়েছে। এ অবস্থায় শামছুল হকের পরিবার থেকে লিটনের সঙ্গে শারমিনের বিয়ের প্রস্তাব দেওয়া হয়। লিটন ও তার পরিবার থেকে শারমিনকে বিয়ে করতে রাজি হয়। কিন্তু কিছুদিন পর লিটন গ্রামের কিছু প্রভাবশালী লোকের সহযোগিতায় অন্য একটি মেয়েকে বিয়ে করে। এই ঘটনার পর শামছুল হক তার মেয়ের প্রতি অন্যায় অবিচারের প্রতিকার জানিয়ে সিরাজঞ্জ বিচারিক হাকিমের আদালতে প্রতারক লিটনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন।

শামছুল হক অভিযোগ পত্রে আরো বলেন, গত ৩১ আগষ্ট সন্ধ্যায় শামছুল হক তার গ্রাম বন্যাকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে একটি মোনহারি (পাউরুটি) দোকানে যাবার সময় কথিত লিটন ও তার সহযোগিরা পরিকল্পিত ভাবে তার উপর হামলা চালায়। লাঠিসোঠা নিয়ে তারা তাকে বেধড়ক পেটায়। এসময় তার চিৎকারে পার্শ্ববতর্ী লোক এগিয়ে এলে লিটন ও তার সহযোগীরা ঘটনাস্থল থেকে দ্রুত পালিয়ে যায়। ওই রাতেই স্থানীয়রা শামছুল হককে সিরাজগঞ্জ বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। বর্তমানে তিনি গুরতর আহত অবস্থায় হাসপাতালের বিছানায় পড়ে আছেন। এরপর শামছুল হক তার উপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় গত ৪ সেপ্টেম্বর লিটন ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে আবারও সিরাজগঞ্জ বিচারিক হাকিমের আদালতে পৃথক আরেকটি মামলা দায়ের করেছেন। আদালত থেকে মামলাটি তদন্তের জন্য উল্লাপাড়া থানায় দেওয়া হয়েছে। শামছুল হক তার অভিযোগপত্রে তার মেয়ের লাঞ্চনা এবং তার (শামছুল) উপর সন্ত্রাসী হামলার উপযুক্ত বিচারের জন্য আবেদন জানিয়েছেন।

এ ব্যাপারে উল্লাপাড়া মডেল থানায় যোগাযোগ করলে, শামছুল হকের মামলার তদন্তকারী মডেল থানার দ্বিতীয় কর্মকর্তা মোঃ আসলাম উদ্দীন বিশ্বাস জানান, ইতোমধ্যেই তারা কয়েকবার লিটনকে গ্রেপতারের জন্য তার বাড়িতে অভিযান চালিয়েছেন। কিন্তু লিটনকে পাওয়া যায়নি। পুলিশ তাকে ধরতে সবধরনের চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।

এ বিষয়ে উল্লাপাড়া নিবার্হী কর্মকর্তা মোঃ আরিফুজ্জামান জানান, তিনি উল্লিখিত শামছুল হকের অভিযোগপত্রটি পেয়ে এ ব্যাপারে দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উল্লাপাড়া থানা পুলিশকে নির্দেশনা দিয়েছেন।



১৩-০৯-২০১৯ ০৮:৪৫ পূর্বাহ্ন প্রকাশিত
http://sirajganjkantho.com/cnews/newsdetails/20190913084500.html
© সিরাজগঞ্জ কন্ঠ, ২০১৬     ||     A Flashraj IT Initiative