তাড়াশে ভন্ড পীর শরীফুল ইসলাম চিশ্তীর অসামাজিক কার্যকলাপ বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ
২২ নভেম্বর, ২০১৯ ০১:২৩ পূর্বাহ্ন


  

  • তাড়াশ/ অন্যান্য:

    তাড়াশে ভন্ড পীর শরীফুল ইসলাম চিশ্তীর অসামাজিক কার্যকলাপ বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ
    ০৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০২:২৯ অপরাহ্ন প্রকাশিত

    এম এ মাজিদ ঃ সিরাজগঞ্জের তাড়াশে তথাকথিত ভন্ড পীর শাহ্ শরীফুল ইসলাম চিশ্তীর অসামাজিক কার্যকলাপ বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার বাদ আসর উপজেলার বারুহাস ইউনিয়নের বিনসাড়া গ্রামের কয়েকশ’ মুসল্লি বিনসাড়া বাজার মসজিদে নামাজ আদায় শেষে ওই কর্মসূচিতে অংশ নেয়। এতে বিনসাড়া গ্রামের সাধারণ মানুষসহ আশপাশের গ্রামের আরও বহু মানুষ একাত্বতা ঘোষণা করেন।

    সমাবেশে বক্তৃতায় মাওলানা মো. সাইফুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুল ওয়াহাব, মাওলানা মুফতি নাজুল হাসান, আব্দুস ছাত্তার, আজমল হোসেন প্রমূখ বলেন, শরীফুল ইসলাম নামে ওই গুরু ব্যবসায়ি নিজেকে পীর দাবি করে সাধারণ মানুষের সরলতার সুযোগ নিয়ে ধোকা দিয়ে আসছেন। একজন পীর হওয়ার কোন যোগ্যতাই তার মধ্যে নেই। তাফসিরে জালালাইন ও হাদিসের কিতাব মিসকাতুল মাসাবিহ পর্যন্ত সে পড়ালেখা করেন নাই। সর্বপরি তাফসিরে রুহুল মায়ানী, তাফসিরে বাগাবী, তাফসীরে কাবীরসহ ১০টি কিতাবে একজন পীর হতে গেলে যে সব শর্ত রয়েছে তথাকথিত ভন্ড পীর শাহ্ শরীফুল ইসলাম চিশ্তীর মধ্যে তার কিছুই নেই। সালামের পরিবর্তে সেখানকার মুরিদদের জয় গুরু বলতে বাধ্য করা হয়। সেখানে যে মাইকে প্রতিদিন আযান দেওয়া হয়, সেই মাইকেই আবার গানও গেয়ে থাকেন মুরিদিয়ানরা।

    বক্তারা আরও বলেন, রবিবার পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (সঃ) উদযাপন উপলক্ষে বহু মানুষকে বিনসাড়া চিশতিয়া-নিজামিয়া দরবার শরীফ ও এতিমখানায় দাওয়াত করা হয়েছে। ধর্মীয় অনুষ্ঠান দেখিয়ে সেখানে এবারও বিভিন্ন রকমের অসামাজিক কর্মকান্ডের সম্ভাবনা রয়েছে।এসবের বিরুদ্ধে তারা (বক্তারা) তাড়াশ থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বরাবর লিখিত আবেদনও করেছেন।

     

    এদিকে সরেজমিনে শুক্রবার বিনসাড়া গ্রামের ওই পীরের আস্তানায় গিয়ে দেখা যায়, সেখানে চারজন শিশু। তাদের সবার বাড়ি নরসিনদী। তারা সবাই বিনসাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণিতে পড়েন। ওই চারজন শিশু নিজেদের মুরিদ সন্তান হিসেবে দাবি করেন। তারাও তাদের পীরকে সালাম দেওয়ার পরিবর্তে জয় গুরু বলে থাকেন।

    এদিকে  শাহ্ শরীফুল ইসলাম চিশ্তী জানান,  তার পীর সাহেব সাহ আব্দুস সামাদ চিশ্তী তাকে (শাহ্ শরীফুল ইসলাম চিশ্তীকে) খেলাফত দিয়েছেন। সেই সূত্রে তিনি নিজেকে পীর বলে দাবি করছেন।

    এ প্রসঙ্গে তাড়াশ থানা (ওসি)তদন্ত মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, তথাকথিত ওই পীরের কর্মকান্ড নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে দ্বিমত রয়েছে। আইনানুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

    সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, তাড়াশ ০৯ নভেম্বর, ২০১৯ ০২:২৯ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 157 বার দেখা হয়েছে।
    পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
    তাড়াশ অন্যান্য খবরসমুহ
    সর্বশেষ আপডেট
    বিশ্বকাপ ক্রিকেট
    নিউজ আর্কাইভ
    ফেসবুকে সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ
    বিজ্ঞাপন
    সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ ফোকাস
    • সর্বাধিক পঠিত
    • সর্বশেষ প্রকাশিত
    বিজ্ঞাপন

    ভিজিটর সংখ্যা
    12101649
    ২২ নভেম্বর, ২০১৯ ০১:২৩ পূর্বাহ্ন