শিক্ষকদের অনুপস্থিতিতে পাঠদান ব্যাহত সুতানারা শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ০৯:১৫ পূর্বাহ্ন


  

  • কাজিপুর/ অন্যান্য:

    শিক্ষকদের অনুপস্থিতিতে পাঠদান ব্যাহত সুতানারা শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়
    ০২ অক্টোবর, ২০১৯ ০৪:৫১ অপরাহ্ন প্রকাশিত

    কাজিপুর প্রতিনিধিঃ সকাল ৯টায় বিদ্যালয়ে উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও কোনো কোনো শিক্ষক প্রায়ই বিদ্যালয়ে পৌঁছান নির্ধারিত সময়ের কয়েক ঘন্টা পরে। দেরি করে বিদ্যালয়ে পৌঁছালেও দুপুরের পরেই আবার বিদায় নেন তারা। ফলে তড়িঘড়ি শেষ হয় পাঠদান কার্যক্রম। সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার ৬৬নং সুতানারা শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ দুই সহকারী শিক্ষকের বিরুদ্ধে উঠেছে এ অভিযোগ। 

    সোমবার সকাল ১০টার দিকে সুতানারা শ্রীপুর বিদ্যালয় পরিদর্শনে গিয়ে দুজন সহকারী শিক্ষকের অনুপস্থিতির সত্যতা পান। সুতানারা শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত ৮৬ শিক্ষার্থীর জন্য ৪ জন শিক্ষক কর্মরত আছেন। কিন্তু বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ লুৎফর রহমান সহ দুজন সহকারী শিক্ষক ইশরাত আফরোজ ও জান্নাতুল ফেরদৌস প্রায়ই বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকেন। যে দিন বিদ্যালয়ে উপস্থিত হন, সে দিনও দেরিতে বিদ্যালয়ে পৌঁছান এবং দুপুরের পরেই বিদ্যালয় থেকে বিদায় নেন। ফলে বাকী একজন সহকারী শিক্ষক মোছাঃ ফাতেমার উপর ৮৬জন শিক্ষার্থীকে পড়ানোর ভার পড়ে। এতে একদিকে যেমন শিক্ষার মান কমছে, তেমনি ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে শিক্ষকদের মধ্যে। 

    সোমবারও প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমান ১০টায় বিদ্যালয় পৌঁছান। তারপর জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। দিকে সহকারী শিক্ষক ইশরাত আফরোজ ও জান্নাতুল ফেরদৌস বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত ছিলেন। ফাতেমা খাতুন ছুটিতে আছেন। এ বিষয়ে প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমান জানান, সহকারী শিক্ষকদের বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকার বিষয়ে বলেন, তারা বিদ্যালয়ে উপস্থিত হবে।

    এদিকে প্রায়ই বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত বা বিলম্বে পৌঁছানোর বিষয়টি সত্য নয় বলে দাবি করেন প্রধান শিক্ষক। সহকারী শিক্ষক ইশরাত আফরোজ ও জান্নাতুল ফেরদৌস অনুপস্থিত বিষয়ে জানান, 'নদী পারাপারের কারণে বিদ্যালয়ে পৌঁছাতে দেরি হচ্ছে। প্রায়ই অনুপস্থিত থাকার বিষয়টি সত্য নয়। প্রায়ই বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত বা বিলম্বে পৌঁছানোর বিষয়টি সত্য নয় বলে দাবি করেন অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা। এব্যাপারে বিদ্যালয়ের সভাপতি বেলাল হোসেনের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করেন পাওয়া যায়নি।

    অনুপস্থিত শিক্ষকদের ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন বলে জানালেন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ আমজাদ হোসেন।

    স্টাফ করেসপন্ডেন্ট,কাজিপুর ০২ অক্টোবর, ২০১৯ ০৪:৫১ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 137 বার দেখা হয়েছে।
    পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
    কাজিপুর অন্যান্য খবরসমুহ
    সর্বশেষ আপডেট
    বিশ্বকাপ ক্রিকেট
    নিউজ আর্কাইভ
    ফেসবুকে সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ
    বিজ্ঞাপন
    সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ ফোকাস
    • সর্বাধিক পঠিত
    • সর্বশেষ প্রকাশিত
    বিজ্ঞাপন

    ভিজিটর সংখ্যা
    11660417
    ১৬ অক্টোবর, ২০১৯ ০৯:১৫ পূর্বাহ্ন