শাহজাদপুরে ভাতিজা কর্তৃক চাচাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা; হামলায় আহত ৬
২০ আগস্ট, ২০১৯ ১০:৪৫ অপরাহ্ন


  

   সর্বশেষ সংবাদঃ

  • শাহজাদপুর/ অপরাধ:

    শাহজাদপুরে ভাতিজা কর্তৃক চাচাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা; হামলায় আহত ৬
    ০২ আগস্ট, ২০১৯ ০৫:২৬ অপরাহ্ন প্রকাশিত

    শামছুর রহমান শিশির : শাহজাদপুরের চরাচিথুলিয়া মহল্লায় জমিজমা সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ভাতিজার দায়ের কোপে ও দেশিয় অস্ত্রের আঘাতে চাচার চাচার করুণ মৃত্যু হয়েছে। নিহতের নাম চাঁদ ফকির (৫৫)। এ ঘটনায় গুরুতর আহত আলম ফকির (৫৭) কে আশংকাজনক অবস্থায় প্রথমে বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও সেখানে শারীরীক অবস্থার চরমাবনতিতে বগুড়া শহিদ জিয়া মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে। অন্যান্য আহতরা হলেন, সাদ্দাম (২৮), আলাই (৩১), শাহজাহান (২৫), শামছুল ফকির (৬০), মনজিলা খাতুন (৪২)। আহতদের স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসাসেবা দেয়া হয়েছে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে আজ শুক্রবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। থানায় হত্যা মামলা হয়েছে ও ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
    নিহতের স্বজন, প্রত্যক্ষদর্শী, থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে শাহজাদপুর উপজেলার চরাচিথুলিয়া চরপাড়া মহল্লার নিহত চাঁদ ফকিরের পৈত্রিক বসত ভিটার জমির মালিকানা নিয়ে তার চাচাতো ভাই গাজী ফকিরের সাথে চরম বিরোধ চলে আসছিলো। নালিশী সম্পত্তি নিয়ে শাহজাদপুর সিনিয়র জজ আদালতে একটি বাটোয়ারা মামলা (যাহার নং-৪৮/২০১২ইং) চলমান রয়েছে। গত ২০১২ সালে নিহত চাঁদ আলীর পিতা মোকছেদ ফকির বাদী হয়ে বাটোয়ারা মামলাটি দায়ের করেন ও মামলাটি চলমান থাকাবস্থায় বাদী মোকছেদ ফকির মারা গেলে ওরারিশ সূত্রে তার ছেলে চাঁদ আলী মামলাটি পরিচালনা করছিলেন। এই ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটাতে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় প্রতিপক্ষ গাজী ফকির গংয়ের ২০/২৫ জন লাঠিসোটা, রড, দাসহ দেশিয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে বিজ্ঞ আদালতে চলমান মামলার অন্তভর্‚ক্ত নালিশী সম্পত্তির ওপর পরিকল্পিতভাবে জোরপূর্বক ঘর নির্মানের চেষ্টা করে। চাঁদ ফকিরের লোকজন গাজী ফকির গংদের মামলা শেষ না হওয়া পর্যন্ত নালিশী সম্পত্তিতে ঘর নির্মান না করার অনুরোধ করলে গাজী ফকিরের লোকজন চাঁদ ফকির গংয়ের ওপর অতর্কিত হামলা চালালে উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। সংঘর্ষ চলাকালে চাঁদ ফকিরকে ভাতিজা জহুরুল দা দিয়ে কুপিয়ে ও অন্যান্যরা লোহার রড় ও লাঠি দিয়ে বেধরক পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। রাতে আশংকাজনক অবস্থায় চাঁদ ফকিরকে বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে হাতপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় নিহতের জৈ¦ষ্ঠ ছেলে সুজন ফকির বাদী হয়ে ১২ জন নামীয় ও অজ্ঞাত ৭/৮ জনের নামে আজ শুক্রবার শাহজাদপুর থানায় একট্ িহত্যা মামলা দায়ের করেন।
    এ বিষয়ে শাহজাদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আতাউর রহমান বলেন, ‘নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। থানায় মামলা হয়েছে। আসামীদের গ্রেফতার করতে জোর প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। যে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।’ ভাতিজা কর্তৃক চাচাকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চলের সৃষ্টি হয়েছে।

     

    সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, শাহজাদপুর ০২ আগস্ট, ২০১৯ ০৫:২৬ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 829 বার দেখা হয়েছে।
    পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ
    শাহজাদপুর অন্যান্য খবরসমুহ
    সর্বশেষ আপডেট
    বিশ্বকাপ ক্রিকেট

    নিউজ আর্কাইভ
    ফেসবুকে সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ
    বিজ্ঞাপন
    সিরাজগঞ্জ কণ্ঠঃ ফোকাস
    • সর্বাধিক পঠিত
    • সর্বশেষ প্রকাশিত
    বিজ্ঞাপন

    ভিজিটর সংখ্যা
    11040854
    ২০ আগস্ট, ২০১৯ ১০:৪৫ অপরাহ্ন