করতোয়া নদী কচুরিপানার দখলে ঝুকিপূর্ণভাবে নদী পারাপার ||চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ওয়েবসাইটে স্বাগতম | যোগাযোগ : ০১৭৭৯-১১৭৭৪৪
১৮ জুন, ২০১৯ ০১:১৮ পূর্বাহ্ন       রেজিষ্টার করুন | লগইন    

উল্লাপাড়া: অন্যান্য

করতোয়া নদী কচুরিপানার দখলে ঝুকিপূর্ণভাবে নদী পারাপার
নিউজরুম ১০-০৬-২০১৯ ০৯:৪৫ অপরাহ্ন প্রকাশিতঃ


ফাইল ছবি

উল্লাপাড়া প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ার বড়হর করতোয়া নদীতে নির্মীয়মান সড়ক সেতুর পাশে ব্যাপক পরিমান কচুরিপানা জমা হয়ে পানির উপরে পুরো স্তরে পরিণত হয়েছে।ফলে বেশ কয়েকদিন ধরে স্থানীয়রা কচুরিপানার উপর দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে নদী পারাপার হচ্ছেন। কচুরিপানায় পরিপূর্ণ এই স্থানের অনতি দুরে বড়হর মূল খেয়াঘাট। স্থানীয় লোকজন মূল খেয়াঘাটে না গিয়ে তাদের সুবিধার জন্য বাড়ির পাশে করতোয়া নদীতে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় বেশি সময় নৌকায় স্থানীয় লোকজন এপার ওপার চলাচল করেন।

বেশ কিছুদিন হলো এখানে ব্যাপক পরিমান কচুরিপানা জমে যাওয়ায় ব্যক্তিগত মালিকানায় চলাচলকারী নৌকা বন্ধ হয়ে গেছে। আর এ কারণে স্থানীয় লোকজন এখন রীতিমতো ঝুঁকি নিয়ে কচুরিপানার স্তরের উপর দিয়েই পারাপার হচ্ছেন। ঈদ উপলক্ষে কচুরিপানা পূর্ণ নদীর এই স্থানটি এখন দর্শনীয় স্থানেও পরিণিত হয়েছে।

দুথদিন ধরে দুরবর্তী লোকজনও এখানে এসে কৌতুহল বশতঃ এই কচুরিপানা স্তরের উপর দিয়ে নদী পারাপার হচ্ছেন। কয়েকদিন ধরে বিকেল বেলা পাশ্ববর্তী গ্রামের যুবকেরা কচুরিপানার স্তরের উপর ফুটবলও খেলছেন। নদীর পারে দাঁড়িয়ে অনেক মানুষ এ দৃশ্য উপভোগ করছেন। বর্তমানে নদীর এই স্থানের গভীরতা প্রায় ২০/২৫ ফুট।

নদীর পাশ্ববর্তী নূরগঞ্জ পেচারপাড়া গ্রামের আলতাফ সরকার, নুরমোহাম্মাদ প্রামানিক, আব্দুল লতিফ সরকার ও বড়হর গ্রামের জহুরুল ইসলাম চৌধুরী, বাদশা হাজী, বরাদ সরকার ও আবু সাঈদ সরকার জানান, সড়ক সেতু নির্মাণের কারণে মূলতঃ কচুরিপানাগুলো নদীতে ভেসে যেতে বাঁধাগ্রস্থ হয়ে এক জায়গায় জমে গেছে।

ফলে মোটা স্তর পরে এখানে পারাপারের রাস্তা তৈরি হয়েছে। কিন্তু এখানে নদীর গভীরতা অনেক বেশি থাকায় সাধারণ লোকজনের কচুরিপানার উপর দিয়ে পারাপার যথেষ্ট ঝুঁকিপূর্ণ। শুধু তাই নয়, এই কচুরিপানা স্তরের উপর দিয়ে মোটর সাইকের নিয়ে চলাচল করছে লোকজন।

যে কোন সময় কচুরি স্তরের মধ্যে লোকজন ঢুকে গিয়ে বা মোটর সাইকেলসহ নদীতে ডুবে বড়ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট বড়হর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জহুরুল হক নান্নুর সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি করতোয়া নদীতে কচুরিপানার উপর দিয়ে লোকজনের চলাচলের কথা নিশ্চিত করে বলেন, স্থানীয়ভাবে লোকজনদেরকে এভাবে ঝুঁকি নিয়ে চলাচলে বাঁধা দিলেও কেউ তা মানছেন না।

প্রতিদিনি চলাচলকারী লোকসংখ্যা বাড়ছে। স্থানীয় ছেলেরা এর উপর বল পর্যন্ত খেলছে। তিনি বিষয়টি উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আরিফুজ্জামান ও উল্লাপাড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেওয়ান কউশিক আহম্মেদকে জানিয়ে এখানে মানুষজন, যানবাহন চলাচল ও খেলাধুলা বন্ধ করার ব্যবস্থা নিচ্ছেন বলে উল্লেখ করেন চেয়ারম্যান।


১০-০৬-২০১৯ ০৯:৪৫ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 313 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ

চৌহালী নিউজঃ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

নির্বাচিত খবরসমুহ
উল্লাপাড়া : আরো খরবসমুহ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত
ফেসবুকে চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ফোকাস
বিজ্ঞাপন

স্পন্সরড অ্যাড

ভিজিটর সংখ্যা
100
১৮ জুন, ২০১৯ ০১:১৮ পূর্বাহ্ন