নড়াইলের স্থানীয় সরকার অধিদপ্তরের প্রায়ই ২০ কিলোমিটার ব্যস্ততম সড়কের পিচ-খোয়া উঠে বেহাল, প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে!||চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ওয়েবসাইটে স্বাগতম | যোগাযোগ : ০১৭৭৯-১১৭৭৪৪
১৯ অক্টোবর, ২০১৮ ১২:০২ পূর্বাহ্ন       রেজিষ্টার করুন | লগইন    

     সর্বশেষ সংবাদঃ

জাতীয়: জনদুর্ভোগ

নড়াইলের স্থানীয় সরকার অধিদপ্তরের প্রায়ই ২০ কিলোমিটার ব্যস্ততম সড়কের পিচ-খোয়া উঠে বেহাল, প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে!
নিউজরুম ০৫-১০-২০১৮ ০৬:১৬ অপরাহ্ন প্রকাশিতঃ


ফাইল ছবি

নড়াইলের স্থানীয় সরকার অধিদপ্তরের প্রায়ই ২০ কিলোমিটার সড়কের পিচ-খোয়া উঠে বেহাল, প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে! স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, নড়াইল থেকে লাহুড়িয়া পর্যন্ত স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) এ সড়কের দৈর্ঘ্য ২০ কিলোমিটার। এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন অসংখ্য অটোরিকশা, বাস, ট্রাক, কাভার্ড ভ্যানসহ নানা ধরণের যানবাহন চলাচল করে। আমাদের নড়াইল প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায় জানান, এটি নড়াইলের উত্তর এলাকায় যাতায়াতের প্রধান সড়ক। সড়কটি দিয়ে এ এলাকার লাহুড়িয়া, শালনগর, নোয়াগ্রাম, কাশিপুর ও জয়পুর ইউনিয়নের প্রায় দেড় লাখ মানুষ নিত্যদিন নড়াইলের  জেলা সদরে যাতায়াত করেন।

 

রাস্তার বিভিন্ন স্থানে পিচ-খোয়া উঠে গেছে। ছোট-বড় অসংখ্য খানাখন্দ। সামান্য বৃষ্টিতেই জমছে পানি। এর ওপর দিয়ে হেলেদুলে ঝুঁকি নিয়ে চলছে গাড়ি। এ অবস্থা নড়াইলের-লাহুড়িয়া সড়কের। সড়কের এমন বেহাল দশায় দুর্ভোগ পোহাচ্ছে চলাচলকারী হাজারো মানুষ। এ ছাড়া এই সড়কটি ব্যবহার করে নড়াইলের লোহাগড়া ও ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা এবং মাগুরা ও ঝিনাইদহ জেলার বাসিন্দারা অল্প সময়ে যাতায়াত করেন। নড়াইলের  জেলা সদরে শেষ প্রান্ত নড়াইলের লাহুড়িয়া বাজার। এ বাজার থেকে মাগুরায় সরাসরি যাত্রীবাহি বাস চলাচল করে। লাহুড়িয়া বাজার থেকে এ সড়ক দিয়ে নড়াইলের লোহাগড়া হয়ে ঢাকায় যাত্রীবাহি বাস চলাচল করে। লাহুড়িয়া, মাকড়াইল, বাতাসি, মন্ডলবাগ, শিয়রবর ও মানিকগঞ্জ এই এলাকার বড় বাজার। এসব বাজারে পণ্য পরিবহনে প্রতিনিয়ত মালবোঝাই ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান চলাচল করে। সরেজমিনে দেখা গেছে, এই ২০ কিলোমিটার সড়কের অধিকাংশ স্থানে পিচ ও খোয়া উঠে ছোট-বড় গর্ত তৈরি হয়েছে। যানবাহন চলছে ঝুঁকি নিয়ে। দুর্ভোগের শুরু লোহাগড়া বাজারের পরেই জয়পুর থেকে।

 

জয়পুর মোড়ে সড়কটি উভয় পাশে পিচ ও খোয়া উঠে দেবে গেছে। এরপর নারানদিয়া-কেষ্টপুরের মধ্যে বেহাল অবস্থা। নড়াইলের লোহাগড়া বাজার থেকে চাচই কেয়ারের মোড় পর্যন্ত খুবই খারাপ অবস্থা। কেয়ার থেকে শিয়েরবর পর্যন্ত মোটা মুটি চলাচল করা যায়। নড়াইলের শিয়েরবর বাজার থেকে কালিগঞ্জ বাজার পর্যন্ত পুরা রাস্তাই খুবই করুন অবস্থা। নড়াইলের মাকড়াইল বাজার থেকে কালিগঞ্জ বাজার এলাকায় অবস্থা সবচেয়ে বেশি খারাপ। এখানে বড় বড় খানাখন্দ তৈরি হয়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই কাদাপানিতে এ অংশ একাকার হয়ে যায়। মাকড়াইল ও তেতুঁলবাড়িয়া এলাকায় তৈরি হয়েছে বড় বড় গর্ত। ঝিনাইদহে চাকরি করেন লোহাগড়া সদরের আরমান ও ইসরাফিল। তারা বলেন, এ সড়ক দিয়ে ঝিনাইদহে খুব সংক্ষিপ্ত রাস্তা। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মোটরসাইকেলে এ সড়ক দিয়ে যাতায়াত করি। মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষক এ সড়ক দিয়ে প্রতিদিন বিদ্যালয়ে যাতায়াত করেন। তিনি বলেন, চাকুরিজীবী ও ব্যবসায়ীসহ কয়েক হাজার মানুষ প্রতিদিন চলাচল করেন। সড়কটির বেহাল দশার কারণে মানুষের দুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে।

 

প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে। নড়াইলের মরিচপাশা গ্রামের অটোরিকশা চালক মাহাবুল মোল্লা, আমাদের নড়াইল প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়কে জানান, ছোট যানবাহন প্রায়ই উল্টে দুর্ঘটনা ঘটছে। অন্তঃসত্ত্বা ও অসুস্থ মানুষের দুর্ভোগ দেখে কান্না আসে। ৩০ মিনিটের পথ যেতে সময় লাগছে দেড় ঘণ্টা। কাভার্ড ভ্যান চালক জসিমউদ্দিন বলেন, গত ১০ বছর যাবৎ এ এলাকার বাজারগুলোতে পণ্য দিতে আসি। সড়কের অধিকাংশ জায়গায় ছোট-বড় গর্ত। গাড়ি চলে হেলেদুলে। খানাখন্দে চাকা পড়লে গাড়ি তোলা দুষ্কর হয়ে যায়। আবার উল্টে যাওয়ার উপক্রম হয়। নাকাল অবস্থা। এই অবস্থায় গাড়ি চালাতে খুব কষ্ট হয়। নড়াইলের শালনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খান তসরুল ইসলাম জানান, শালনগর ইউনিয়ন অংশে তাঁর ব্যক্তিগত অর্থে বড় গর্তগুলো খোয়া দিয়ে ভরাট করেছেন। এতে ওই অংশে দুর্ভোগ কিছুটা কমেছে। তিনি বিষয়টি নিয়ে বার বার উপর মহলে জানিয়েছেন বলেও জানান তিনি।

 

এ প্রসঙ্গে, এলজিইডির নড়াইলের উপজেলা প্রকৌশলী হরশিত কুমার শাহা, আমাদের নড়াইল প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়কে জানান, ২০ কিলোমিটার সড়কের কিছু অংশে সংস্কার কাজ অল্প দিনের মধ্যেই শুরু হবে। বাকি অংশের কাজ করার জন্য ঢাকায় সংশ্লিষ্ঠ বিভাগে অর্থ বরাদ্দ চেয়ে প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন হয়ে আসলে টেন্ডারের মাধ্যমে কাজ সম্পূর্ণ করা হবে। এ প্রসঙ্গে, নড়াইল জেলা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) নির্বাহী প্রকৌশলী আবু ছায়েদ, আমাদের নড়াইল প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়কে জানান, এটি অনেক ব্যস্ততম সড়ক। সড়কটি দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে। সড়কের কিছু কিছু স্থানে পিচ উঠে গেছে। সড়কের যে সব জায়গায় চলাচলে অসুবিধা হচ্ছে বরাদ্দ এলে সড়কটির সেই সব জায়গা মেরামত করা হবে। আশা করি বর্ষা মৌসুমের পরে কাজ শুরু করতে পারবো। সড়কটি দ্রুত সংস্কার করে ভুক্তভোগিদের ভোগান্তির অবসান ঘটাবে এমনটি প্রত্যাশা এলাকাবাসীর।।


০৫-১০-২০১৮ ০৬:১৬ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 49 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ

চৌহালী নিউজঃ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

নির্বাচিত খবরসমুহ
জাতীয় : আরো খরবসমুহ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত
ফেসবুকে চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ফোকাস
বিজ্ঞাপন

স্পন্সরড অ্যাড

ভিজিটর সংখ্যা
100
১৯ অক্টোবর, ২০১৮ ১২:০২ পূর্বাহ্ন