সুন্ধর্যের আরেক নাম চলনবিল||চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ওয়েবসাইটে স্বাগতম | যোগাযোগ : ০১৭৭৯-১১৭৭৪৪
১৮ অক্টোবর, ২০১৮ ১১:৩৪ অপরাহ্ন       রেজিষ্টার করুন | লগইন    

     সর্বশেষ সংবাদঃ

তাড়াশ: অন্যান্য

সুন্ধর্যের আরেক নাম চলনবিল
নিউজরুম ২৪-০৯-২০১৮ ০২:৫১ অপরাহ্ন প্রকাশিতঃ


ফাইল ছবি

এম এ মাজিদঃ   সুন্দর্যের আরেক নাম চলনবিল। সিরাজগ্ঞ্জ,নাটোর ও পাবনা তিনটি জেলার নয়টি উপজেলায় বিস্তৃত ছোট বড় খাল, বিল ,নদ নদী,জলাশয় নিয়ে ঐতিহাসিক চলনবিল অবস্থিত। এশিয়া মহাদেশের সর্ববৃহত বিল এটি। সিরাজগঞ্জের তাড়াশ,রায়গঞ্জ,উল্লাপাড়া,শাহজাদপুর। নাটেরের সিংড়া,গুরুদাসপুর এবং পাবনা জেলার ফরিদপুর,চাটমোহর ও ভাঙ্গুড়া উপজেলার প্রায় ১২ হাজার বর্গমাইলে বিস্তৃত এ চলনবিল। বর্ষাকালে চারিদিকে শুধু পানি আর পানি আর বিলের মধ্যে অবস্থিত গ্রামগুলো দুর থেকে দেখে মনে হয় ছোট কচুরি পানার মত।

 

বর্ষার সময় চলনবিলের বুক কাপানো ঢেউ থেকে বিল পারে অবস্থিত বাড়িগুলো রক্ষার জন্য সংগ্রাম চালিয়ে যেতে হয়। তার পরেও সর্বনাশা ঢেউয়ে অনেক বাড়ি ঘড় ধ্বংস হয়ে যায়। এত কিছুর পরেও বিল পারের মানুষদের মনে প্রশান্তি জাগিয়ে তোলে চলনবিলের অপরুপ সুর্ন্ধয। বর্য়ায় পানির জলরাশি জুড়ে ঢেউয়ের খেলায় চলনবিলকে মুখরিত করে । দেশের উৎপাদিত মাছের অন্যতম প্রধান উৎস এই চলনবিল । এখানে পাওয়া যায় শিং,মাগুর কই,পাবদা টেংরা,বালুচাটা,শোল,বোয়াল,গজার,বাইম,নন্দই,পুঁটি,চিতল,টাকি সহদেশীয় নানা প্রজাতির মাছ ।

প্রতি বছরেই বষর্ৃাকালে তার হারানো যৌবন ফিরে  পায় এই চলনবিল।  তাই এই সময় চলনবিলে বিনোদনের জন্য আসে ভ্রমন পিপাসুরা। চলনবিলের অথৈয় ঢেউয়ে নৌকায় চড়ে, চলনবিলের বুক চিরে পাল তোলা নৌকায় নীল আকাশের নিচে বেড়ানোর মজাটাই আলাদা। বিনসাড়া গ্রামে বেহুলা 

এছাড়াও,বিভিন্ন এলাকা থেকে ব্যবসায়ীরা নৌকা পথে চলনবিলের আত্রাই,গুড়নদী,বরনাইনদী,বড়াল নদী,তুলসী নদী,চেচুয়ানদী ,ভাদাইনদী,গুমানীনদী বয়ে ব্যবসা করে জীবন যাবন করে থাকেন । নৌকা যোগে ব্যবসা করাটাও ভ্রমণের মতো।

তাই দেশ বিদেশে পরিচিত এই বিলকে পর্যটকদের কাছে আর্কষর্নীয় করার জন্য হোটেল মোটেলের সুবিধাসহ কয়েকটি দর্শনীয় স্পটকে আধুনিকায়ন করলেই এটি হতে পারে দেশের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র । চলনবিল এলাকার কৃতি সন্তান ঢাকা শিশু হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ আব্দুল আজিজ বলেন, ছোটবেলা থেকে দেখছি বর্ষাকালে চলনবিল এলাকায় যেদিক চোখ যায় শুধু শুধু পানি আর পানি । আর এই পানির উপরে ভেসে চলছে রাশি রাশি পাল তোলা নৌকা। তাই সরকারী বেসরকারি উদ্যোগে চলনবিল এলাকায় পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তুললে আবারও আমরা পেতে পারি অতীতের স্মৃতি বিজরিত দৃশ্যাবলী।


চলনবিল এলাকার কৃতি সন্তান পেট্রবাংলার সাবেক চেয়ারম্যান ড: হোসেন মনসুর বলেন ,চলনবিল এশিয়া মহাদেশের মধ্যে বৃহত্তম বিল। এখানে বর্ষাকালে বেড়াতে আসেন বিভিন্ন এলাকা থেকে ভ্রমণ পিপাসু জনগন। । কাজেই চলনবিলে পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তুললে এটা হবে দেশ বিদেশের পর্যটকদের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র ।

 


২৪-০৯-২০১৮ ০২:৫১ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 115 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ

চৌহালী নিউজঃ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

নির্বাচিত খবরসমুহ
তাড়াশ : আরো খরবসমুহ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত
ফেসবুকে চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ফোকাস
বিজ্ঞাপন

স্পন্সরড অ্যাড

ভিজিটর সংখ্যা
100
১৮ অক্টোবর, ২০১৮ ১১:৩৪ অপরাহ্ন