উল্লাপাড়ায় দেশি গরুর চাহিদা বেশি হাটগুলোতে কেনাবেচা জমে উঠেছে||চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ওয়েবসাইটে স্বাগতম | যোগাযোগ : ০১৭৭৯-১১৭৭৪৪
১২ নভেম্বর, ২০১৮ ১১:৩০ অপরাহ্ন       রেজিষ্টার করুন | লগইন    

উল্লাপাড়া: কৃষি ও খাদ্য

উল্লাপাড়ায় দেশি গরুর চাহিদা বেশি হাটগুলোতে কেনাবেচা জমে উঠেছে
করেসপন্ডেন্ট, উল্লাপাড়া ১৮-০৮-২০১৮ ০৭:৩৭ পূর্বাহ্ন প্রকাশিতঃ


ফাইল ছবি

রায়হান আলীঃ সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার হাটগুলোতে কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে প্রচুর গরু-ছাগল উঠেছে। একই সাথে চলছে জমজমাট কেনাবেচাও। দামও ভাল। দাম ভাল পাওয়ায় কৃষক ও খামারিরাও খুশি। হাটগুলোতে ক্রেতা বিক্রেতারা বলছেন এবার দেশি গরুর চাহিদা দেশি। ক্রেতারা বলছেন,গত বারের চেয়ে এবার দাম একটু বেশি।

জানা যায়,উল্লাপাড়া উপজেলায় এবার কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে খামারী ও কৃষকরা প্রায় ১৮হাজার গবাদি পশু পালন করেছে খামারীরা। দেশীয় খাবার খাইয়ে এসব গবাদিপশু গুলোকে মোটা তাজা করা হয়েছে। তবে খামারিরা জানিয়েছেন,খৈল-ভুষিসহ গোখাদ্যের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় গবাদিপশু পালনে ব্যায় বেড়েছে। যার কারনে গবাদিপশুর দাম একটু বেশি।

শুক্রবার দুপুরে সরেজমিনে উত্তরাঞ্চলের বৃহৎ গরুহাট উল্লাপাড়া গ্যাস লাইনে গিয়ে ক্রেতা ও বিক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা যায়,এবার মাঝারি দেশি গরুর চাহিদা বেশি। কয়েকজন মিলে অল্পদামে সহজেই কোরবানি দেয়া যায় বলে এর চাহিদা বেশি। এ হাটে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে ৬ থেকে ৭হাজার গরুর আমদানি হয়েছে। দেশি জাতের ছোট গরুর সাথে বড় গরুও এসেছে প্রচুর।

ঢাকা সহ বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ব্যাপারীরাও এসেছেন এ হাট থেকে গরু কিনতে। কেনাবেচাও ভাল। কয়েকজন গরুর ব্যাপারী জানান,একদিন আগেই এসে তারা এখান থেকে পছন্দমত গরু কিনে নিয়ে ঢাকার বিভিন্ন হাটে বিক্রি করবে। তাদের সাথে স্থানীয় বিভিন্ন উপজেলা থেকে সাধারন ক্রেতারাও এসেছেন কোরবানির গরু কিনতে। এ হাটে প্রতিবার কোরবানির ঈদে কোটি কোটি টাকার গবাদিপশু ক্রয় বিক্রয় হয়। যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল হওয়ায় এ হাটটিতে ক্রেতা বিক্রেতাদের সমাগম একটু বেশি। এ হাটে এবার পযাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থার পাশাপাশি জাল টাকা সনাক্তের মেশিনও বসানো হয়েছে। হাটে ভারতীয় গরু নেই বলে গবাদিপশু বিক্রি করে মালিকরা এবার ভালই লাভবান হচ্ছে বলে জানান তারা।

হাটে কখা হলো উল্লাপাড়ার পেচারপাড়া গ্রামের মোনছের প্রামানিকের ছেলে খামারী নজরুল ইসলামের সাথে। তিনি হাটে দুটি বৃহৎ গরু নিয়ে এসেছেন। তার গরু দুটি তিনি ৮লাখ টাকা দাম হেকেছেন। এখন পর্যন্ত ক্রেতা দুটি গরুর দাম বলেছে ৫লাখ ২০হাজার। নজরুল ইসলাম জানান,৩লাখ ৫হাজার টাকায় গরু দুটি কিনে তিনি প্রায় এক বছর লালন পালন করেছেন। সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত গরু দুটির পিছনে তার খরচ হয়েছে প্রায় সাড়ে ৪লাখ টাকা। ৬লাখ টাকা হলে তিনি গরু দুটি বিক্রি করবেন বলে জানান। প্রতি বছরই তিনি দুটি করে গরু মোটা তাজা করে বিক্রি করেন। এর পাশাপাশি তিনি কৃষি কাজও করেন। এ কাজে তাকে তার স্ত্রী সন্তানও সহায়তা করেন। তার মত স্থানীয় ছোট বড় খামারীরা কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে গবাদিপশু মোটা তাজা করে নিজেরা লাভবান হওয়ার পাশাপাশি সংসারে সচ্ছলতা বয়ে এনেছেন।


১৮-০৮-২০১৮ ০৭:৩৭ পূর্বাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 847 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ

চৌহালী নিউজঃ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

নির্বাচিত খবরসমুহ
উল্লাপাড়া : আরো খরবসমুহ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত
ফেসবুকে চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ফোকাস
বিজ্ঞাপন

স্পন্সরড অ্যাড

ভিজিটর সংখ্যা
100
১২ নভেম্বর, ২০১৮ ১১:৩০ অপরাহ্ন