শাহজাদপুরে নির্বিচারে ডিমওয়ালা মা ও পোনা মাছ নিধন : বংশ বৃদ্ধি নিয়ে উদ্বেগ||চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ওয়েবসাইটে স্বাগতম | যোগাযোগ : ০১৭৭৯-১১৭৭৪৪
১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ১২:৩০ পূর্বাহ্ন       রেজিষ্টার করুন | লগইন    

শাহজাদপুর: অপরাধ

শাহজাদপুরে নির্বিচারে ডিমওয়ালা মা ও পোনা মাছ নিধন : বংশ বৃদ্ধি নিয়ে উদ্বেগ
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, শাহজাদপুর ১৭-০৮-২০১৮ ০৩:৪৮ অপরাহ্ন প্রকাশিতঃ


ফাইল ছবি

শামছুর রহমান শিশির : শাহজাদপুর উপজেলার যমুনা, করতোয়া, বড়াল, হুরাসাহর, ধলাই, চাকলাইসহ চলনবিলের বিস্তৃত জলসীমায় স্থানীয় জেলেদের কারেন্ট, বাদাই ও মশারি জালে প্রচুর পরিমাণে ধরা পড়ছে ডিমওয়ালা মা মাছ। ফলে মাছের বংশবৃদ্ধি নিয়ে চরম উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন অভিজ্ঞ মহল। প্রজনন মৌসুমে যমুনায় জেলেদের ডিমওয়ালা মা মাছ নিধন বন্ধ করা না গেলে যমুনায় দেশীয় প্রজাতির বিভিন্ন প্রকারের মাছের আকাল দেখা দেয়ার আশঙ্কা রয়েছে। এ দিকে ডিমওয়ালা মা মাছের সাথে পাউনে (মাটির গর্তে) ডিম ছাড়া মা মাছও জেলেদের জালে ধরা পড়ায় পোনামাছের জীবনও বিপন্ন হয়ে পড়েছে। প্রজনন মৌসুমে যমুনাসহ অন্যান্য নদীতে ডিমওয়ালা মা ও পোনা মাছ নিধনে বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে ওইসব নিষিদ্ধ জাল দিয়ে স্থানীয় জেলেরা নির্বিচারে মা মাছ নিধন করছেন। দেশীয় প্রজাতির মাছের প্রজনন ও বংশবৃদ্ধি নির্বিঘ্নে করার পরিবেশ তৈরি করতে সংশ্লিষ্ট বিভাগকে অভিযান চালিয়ে মা মাছ ও পোনা নিধন বন্ধ করতে অবিলম্বে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন এলাকার সচেতনমমহল। উপজেলার যমুনা, করতোয়া, বড়াল, হুরাসাহর, ধলাই, চাকলাইসহ চলনবিলাঞ্চলের বেশ কয়েকজন এলাকাবাসী ও জেলেরা জানান, যমুনা, করতোয়া, বড়াল, হুরাসাহর, ধলাই, চাকলাইসহ চলনবিলের বিস্তৃত নদীর পানি বৃৃদ্ধির সাথে সাথে শাহজাদপুরের যমুনা নদী তীরবর্তী কৈজুরী, জামিরতা, কাশিপুর, বেনুটিয়া, সোনাতুনীসহ পাশের এলাকাগুলোতে ডিমওয়ালা মা মাছের আনাগোনা বৃদ্ধি পেয়েছে। জেলেদের জালে ধরা পড়ছে দেশীয় প্রজাতির বড় বড় আকৃতির মা মাছ। এসব এলাকায় প্রতি দিনই ডিমওয়ালা রুই, আইড়, পাঙ্গাশ, চিতল কাতলাসহ দেশীয় প্রজাতির বড় বড় ডিমওয়ালা মা মাছ ধরা পড়ছে। যা বিভিন্ন হাটবাজারে হাজার হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। জেলেরা জানান, আইড় মাছ পাউনে (মাটির গর্তে) পোনা ছাড়ার পর ওইসব পোনা মা আইড় মাছের শরীরের লালা খেয়ে বেঁচে থাকে। ফলে আইড় মাছের শরীর কালচে আকার ধারণ করে। পরে ওইসব পোনা মাছ অন্য খাবার খাওয়া শুরু করলে মা আইড় মাছের শরীর লালচে আকার ধারণ করে। বর্তমানে যমুনায় বড় আকারের পাঙ্গাশ, আইড়, চিতল, রুই, কাতলাসহ বিভিন্ন প্রজাতির মা মাছ ডিম ছাড়ছে। কিন্তু তদারকির অভাবে জেলেরা অবৈধ কারেন্ট, বাদাই ও মশুরি জাল দিয়ে নির্বিচারে পোনা ও ডিমওয়ালা মাছ নির্বিচারে নিধন করায় মাছের বংশবৃদ্ধি নিয়ে চরম উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বিজ্ঞমহল। সেইসাথে স্থানীয় মৎস্য অফিসের কর্মকর্তাদের বিষয়ে নীরব ভূমিকা নিয়েও জনমনে নানা প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে।

১৭-০৮-২০১৮ ০৩:৪৮ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 299 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ

চৌহালী নিউজঃ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

নির্বাচিত খবরসমুহ
শাহজাদপুর : আরো খরবসমুহ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত
ফেসবুকে চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ফোকাস
বিজ্ঞাপন

স্পন্সরড অ্যাড

ভিজিটর সংখ্যা
100
১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ১২:৩০ পূর্বাহ্ন