ঘড়যন্ত্রকারী বিএনপির সঙ্গে আর সংলাপ নয়ঃ হাছান মাহমুদ||চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ওয়েবসাইটে স্বাগতম | যোগাযোগ : ০১৭৭৯-১১৭৭৪৪
২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০২:১৯ পূর্বাহ্ন       রেজিষ্টার করুন | লগইন    

কাজিপুর: রাজনীতি

ঘড়যন্ত্রকারী বিএনপির সঙ্গে আর সংলাপ নয়ঃ হাছান মাহমুদ
নিউজরুম ১৪-০৮-২০১৮ ০২:১২ অপরাহ্ন প্রকাশিতঃ


ফাইল ছবি

সিনিয়ন স্টাফ করেসপন্ডেন্টঃ বিএনপি অন্যের ওপর ভর করে দেশে বিশেষ পরিস্থিতি তৈরি করতে চায়। এই ষড়যন্ত্রকারীদের সঙ্গে আর কোনো সংলাপ বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ। 

 সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। বঙ্গবন্ধু হত্যা ও জেনারেল জিয়ার ভূমিকা শীর্ষক এ আলোচনা সভার আয়োজন করে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রীয় কমিটি। সংগঠনের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য লায়ন চিত্তরঞ্জন দাসের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মোল্লা জালাল, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাডভোকেট বলরাম পোদ্দার, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ও মুখপাত্র অরুণ সরকার রানা, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এম এ কাদের খান, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের কেন্দ্রিয় কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য ও কাজিপুর শাখার সভাপতি আলহাজ্ব শেখ শাহ আলম , সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম রণি, সমীরণ রায়, মাসুদ রানা, বৃষ্টি রানী সরকার প্রমুখ।
হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপি রাজনীতির নামে অপরাজনীতি করে। তারা মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করে। কোমলমতি শিশুদের ওপর ভর করে দেশে বিশেষ পরিস্থিতি সৃষ্টি করে। তারা সব সময়ই সড়যন্ত্র করে। এই ষড়যন্ত্রকারীদের সঙ্গে কোনো সংলাপ হতে পারে না। আওয়ামী লীগ এতো দেউলিয়া হয়ে যায়নি যে তাদের সঙ্গে সংলাপ করতে হবে ।
১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস সম্পর্কে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যায় জেনারেল জিয়া ওতপ্রতোভাবে জড়িত ছিলেন। কারণ জিয়া মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার ছিলেন। ওই সময় তার স্ত্রী খালেদা জিয়া পাক সেনাদের ক্যাম্পে ছিলেন। এটা কি কোনোভাবে হতে পারে। যেখানে মুক্তিযোদ্ধাদের সহায়তা করলে নির্যাতন ভোগ করতে হয়, সেখানে জিয়াউর রহমান সেক্টর কমান্ডার হলে তার স্ত্রী পাক সেনাদের সঙ্গে থাকে কিভাবে। আসলে জিয়াউর রহমান কখনও সম্মুখ সমরে ছিলেন না। তিনি ছিলেন পাকিস্তানের গুপ্তচর। তবে বঙ্গবন্ধু হত্যার ইতিহাসকে কালিমা থেকে মুক্ত করতে একটি কমিশন গঠন করে সেতপত্র প্রকাশ করা উচিত। তাহলে কারা ষড়যন্ত্র করছিল তা জাতির সামনে উন্মোচিত মহতো।

 


মোল্লা জালাল বলেন, আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারীরা ঢুকে পরেছে। এই অনুপ্রবেশকারীদের অবিলম্বে ছেটে ফেলা উচিত। তা না হলে সামনে অনুপ্রবেশকারীরাই আওয়ামী লীগকে ডুবাবে। দলের অনেক ত্যাগি কর্মীরা কেন্দ্রীয় কমিটি ও মহানগরে ঠাই পায়নি। এটা দু:খজনক। তারপরেও ত্যাগি কর্মীরা শেখ হাসিনার জন্য নি:স্বার্থভাবে কাজ করে যাচ্ছেন।

                          

 


১৪-০৮-২০১৮ ০২:১২ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 108 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ

চৌহালী নিউজঃ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

নির্বাচিত খবরসমুহ
কাজিপুর : আরো খরবসমুহ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত
ফেসবুকে চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ফোকাস
বিজ্ঞাপন

স্পন্সরড অ্যাড

ভিজিটর সংখ্যা
100
২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০২:১৯ পূর্বাহ্ন