কোটা আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি মাহমুদুর রহমান নাটক সাজাচ্ছে : ড. হাছান মাহমুদ||চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ওয়েবসাইটে স্বাগতম | যোগাযোগ : ০১৭৭৯-১১৭৭৪৪
২০ অক্টোবর, ২০১৮ ০৬:৫৪ পূর্বাহ্ন       রেজিষ্টার করুন | লগইন    

কাজিপুর: রাজনীতি

কোটা আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি মাহমুদুর রহমান নাটক সাজাচ্ছে : ড. হাছান মাহমুদ
নিউজরুম ২৪-০৭-২০১৮ ১০:৪৭ পূর্বাহ্ন প্রকাশিতঃ


ফাইল ছবি

স্টাফ করেসপন্ডেন্টঃ কোটা আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে বিএনপি এখন মাহমুদুর রহমানকে নিয়ে নাটকে নেমেছেন মন্তব্য করে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং দলের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ এমপি বলেছেন, মাহমুদুর রহমানের উপর এই হামলা সমর্থনযোগ্য নয়

ঠিক তেমনি ছাএলীগের উপর দায় চাপানোটাও সমর্থনযোগ্য নয়।কিন্তু মাহমুদুর রহমান উনি কে? উনি কাবা শরিফের ছবি বিকৃতি করে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের অনুভূতিতে আঘাত হানার জন্য সেখানে সাঈদির ছবিসহ আরও অনেকের ছবি জোড়ে দিয়েছিলো। তিনি বঙ্গবন্ধু, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তার পরিবার নিয়ে যেই অকথ্য, অশালীন ভাষায় কথা বলেছেন তিনি আবার একটি পত্রিকার সম্পাদক। এখন যখন তার উপর দুষ্কৃতিকারীরা হামলা করেছে সেটাকে তিনি ছাত্রলীগের ওপর দায় চাপানোর চেষ্টা করছেন।
সোমবার (২৩ জুলাই) জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে 'বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমেদের ৯৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে' বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।তিনি বলেন ,খাবারের উচ্ছিষ্ট ছিটালে যেমন কাকের অভাব হয়না ঠিক তেমনি মর্জা ফকৱুল সাহেবরাও ক্ষমতার লোভে বিএনপিতে যোগ দিয়েছেন। মির্জা ফখরুল সাহেব বড় বড় কথা বলেন আপনিও রাজনীতির কাক। কারণ আপনি করতেন বামপন্থি দল সেখান থেকে ডানপন্থী বিএনপিতে চলে গেলেন। অর্থাৎ আপনি আপনার নীতি আদর্শ বাদ দিয়ে ক্ষমতার উচ্ছিষ্টের লোভে আপনি বিএনপি হয়েছেন। আরও অনেকের নাম বলতে পারি এরা কারা? এরা রাজনীতির কাক। এই রাজনীতির কাকদের সমন্বয়ে দল হচ্ছে বিএনপি।


সাবেক বন ও পরিবেশ মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বাংলাদেশে দুই ধরনের বিএনপি নেতা আছে বিএনপি বাই-চান্স আর বিএনপি বাই-এক্সিডেন্ট। বিএনপি বাইচান্স মানে যারা কোন না কোন ঘটনার কারণে বিএনপি হয়েছে, অনেকে আওয়ামী লীগে নমিনেশন না পেয়ে বিএনপিতে গিয়েছে। এখন পত্রিকার সম্পাদকও কিছু দেখা দিয়েছে সম্পাদক বাই-এক্সিডেন্ট অথবা সম্পাদক বাই-চান্স। সুপ্রিম কোর্টে আপিল বিভাগের প্রধান বিচারপতি এই মাহমুদুর রহমান সম্পর্কে বলেছেন এডিটর বাই-চান্স।


তাজউদ্দীন আহমেদের ৯৩তম জন্মবার্ষিকীতে তার বিদেহী আত্মার প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা যারা রাজনীতি করি এবং ভবিষ্যতে যারা রাজনীতি করবে তাদের সবার তাজউদ্দীন আহমেদের জীবনী থেকে অনেক কিছু শেখার আছে। তাজউদ্দীন আহমেদসহ তার সহচররা রাজনীতিকে ব্রত হিসেবে গ্রহণ করে জীবনকে হাতের মুঠোয় নিয়ে তারা রাজনীতির মাঠে নেমে এই দেশকে মুক্ত করা এবং স্বাধীনতা অর্জনের ক্ষেত্রে এবং বঙ্গবন্ধুকে কারাগার থেকে মুক্ত করার ক্ষেএে যে সহযোগিতা তারা করেছিলেন তা জাতির ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।


বিএনপির নেতাদের অনুরুধ জানিয়ে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, আপনারা সিদ্ধান্ত নেন, খালেদা জিয়া বড় না বিএনপি বড়। তারেক রহমানের মতো দুর্নীতিবাজ বড় নাকি বিএনপি বড়। খালেদা জিয়াকে রক্ষা করবেন নাকি বিএনপিকে রক্ষা করবেন। আমি আশা করবো আপনারা বিএনপিকেই রক্ষা করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবেন। আজ ২৩ জুলাই রোজ সোমবার ২০১৮ইং সকাল ১১ জাতীয় প্রেসক্লাবের ২য় তলার কনফারেন্স লাউঞ্জে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দিন আহমেদের ৯৩তম জন্মদিন উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের উপদেষ্টা লায়ন চিত্ত রঞ্জন দাস এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ এম.পি।

 


বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মুকুল বোস, বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা, সাংগঠনিক সম্পাদক সোনিয়া রেজা, আওয়ামী লীগ নেতা ও সংগঠনের কেন্দ্রিয় কমিটির কার্য নির্বাহী সম্পাদক শেখ শাহ আলম, মোবারক আলী শিকদার, হাবিব উল্লাহ রিপন, দিলীপ সরকার-সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।


বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, মুক্তিযুদ্ধে তাজউদ্দিনের অবদান বাঙালি জাতি তার প্রতি চিরদিন কৃতজ্ঞ থাকবে। তার বলিষ্ঠ নেতৃত্বেই ৯ মাস মুক্তিযুদ্ধ পরিচালিত হয়েছে। তিনি বিএনপির উদ্দেশ্যে বলেন, বিএনপি এখন জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন। তাই বিদেশীদের কাছে ধর্ণা দিচ্ছেন ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য। ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদি যদি বলেন, তোমাদের ক্ষমতায় এনে দেব তাহলে তারা মোদির জুতো পালিশ করবে। বিএনপির জনগণের প্রতি আস্থা নেই। তাই তারা সরকারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ইস্যু তৈরী করে দেশ ও জাতির বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। তাই সবাইকে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তিকে ক্ষমতায় আনার জন্য কাজ করতে হবে। শেখ হাসিনাই হচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার প্রতীক। 

                


২৪-০৭-২০১৮ ১০:৪৭ পূর্বাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 214 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ

চৌহালী নিউজঃ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

নির্বাচিত খবরসমুহ
কাজিপুর : আরো খরবসমুহ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত
ফেসবুকে চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ফোকাস
বিজ্ঞাপন

স্পন্সরড অ্যাড

ভিজিটর সংখ্যা
100
২০ অক্টোবর, ২০১৮ ০৬:৫৪ পূর্বাহ্ন