মরা যমুনায় ডেকেছে বান,সহস্রাধিক বাড়িঘর বিলীন; ৫’শ বানভাসীকে ত্রাণ দিলেন এমপি হাসিবুর রহমান স্বপন ||চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ওয়েবসাইটে স্বাগতম | যোগাযোগ : ০১৭৭৯-১১৭৭৪৪
২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৭:০০ পূর্বাহ্ন       রেজিষ্টার করুন | লগইন    

শাহজাদপুর: জনদুর্ভোগ

মরা যমুনায় ডেকেছে বান,সহস্রাধিক বাড়িঘর বিলীন; ৫’শ বানভাসীকে ত্রাণ দিলেন এমপি হাসিবুর রহমান স্বপন
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, শাহজাদপুর ১৬-০৭-২০১৭ ০৮:০৩ অপরাহ্ন প্রকাশিতঃ


ফাইল ছবি

শামছুর রহমান শিশির, শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) থেকে : শুষ্ক মৌসুমের মরা যমুনায় ডেকেছে বান! অকষ্মাৎ যমুনার বানের পানি দু’কূল ছাপিয়ে নদী তীরবর্তী এলাকাগুলোর ঘরবাড়ি, ফসল, নলকূপ ও গ্রামীন জনপদকে প্লাবিত করেছে। শাহজাদপুরের বিভিন্ন এলাকা, যমুনার বিস্তৃত চরাঞ্চল, সিরাজগঞ্জের কাজিপুর, চৌহালী, এনায়েতপুর, জামালপুর, মানিকগঞ্জ ও টাঙ্গাইল জেলার যমুনা নদী তীরবর্তী চরাঞ্চলসহ বিস্তৃর্ণ এলাকা অকষ্মাৎ বানের পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহতায় রূপ নিয়েছে! এতে যমুনা তীরবর্তী লাখ লাখ মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। বিভিন্ন পয়েন্টে যমুনার বানের পানি বিপদ সীমার অনেক উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় নদী তীরের পার্শ্ববর্তী এলাকাগুলোর মাঠের ফসল,ঘাট ও জনপদ প্লাবিত হয়েছে এবং প্রতিদিনই নতুন নতুন এলাকা বানের পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে। এতে অসংখ্য পরিবার পানিবন্দী হয়ে দুর্বিসহ জীবনযাপন করছে। হঠাৎ বানের পানিতে চরাঞ্চলসহ বিভিন্ন স্থানে নলকূপ ডুবে যাওয়ায় যমুনা তীরবর্তী বিভিন্ন এলাকায় বিশুদ্ধ পানির তীব্র সংকট সৃষ্টি হয়েছে। এসব এলাকায় পয়োঃনিষ্কাষণ ব্যবস্থা লাজুক আকার ধারণ করায় ডায়রিয়া, আমাশয়, উদরাময়, চর্মরোগসহ পানিবাহিত নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে যমুনাপাড়ের অগণিত জনমানুষ।এসব এলাকায় অবিলম্বে বিশুদ্ধ পানি,খাবার,ঔষধসহ ত্রাণ বিতরণ অতীব জরুরী হয়ে পড়েছে। গত তিন সপ্তাহে সোনাতনী ইউনিয়নের দুটি গ্রামের প্রায় সহ¯্রাধিক ঘরবাড়ি যমুনার কড়াল গ্রাসে বিলীন হয়েছেঝ। সোনাতুনীর শ্রীপুর গ্রামের শতাধিক পরিবার, বানতিয়ার ২ শতাধিক, চামতাঁরা ৩ শতাধিক, ধীতপুর গ্রামের দেড় শতাধিক পরিবার এবং কৈজুরী ইউনিয়নের হাটপাচিল গ্রামের শতাধিক পরিবার সরাসরি যমুনার ভাঙ্গণে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। 
আজ রোববার বিকেলে যমুনার দুর্গম চরাঞ্চল সোনাতুনী ইউনিয়নের বানতিয়ার চরে ক্ষতিগ্রস্থ ওই এলাকার প্রায় ৫’শতাধিক পরিবারের সদস্যদের মধ্যে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে জনপ্রতি ১০ কেজি চাউল ও নগদ অর্থ, পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট ও খাবার স্যালাইন ত্রাণ বিতরণ করেছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব হাসিবুর রহমান স্বপন। সোনাতুনী ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ত্রাণ বিতরণ ওই কার্যক্রমে, বিশেষ অতিথি ছিলেন শাহজাদপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান প্রফেসর আজাদ রহমান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলীমুন রাজীব, থানার অফিসার ইনচার্জ মো: খাজা গোলাম কিবরিয়া, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও কৈজুরী ইউনিয়র পরিষদ চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম, শাহজাদপুর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম শাহু, সোনাতুনী ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি মতুর্জ আলী, সাধারণ সম্পাদক আয়েজ আলী প্রমূখ।
জানা গেছে,উজানের ঢলে ও প্রবল বর্ষণে গতকাল রোববার পানি কিছুটা কমলেও বিপদ সীমার অনেক উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির চরমবনতি ঘটেছে। অকষ্মাৎ বানের পানিতে ঘরবাড়ি তলিয়ে যাওয়ায় ঘরবাড়ি ফেলে গবাদীপশু নিয়ে নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে উচু স্থানের সন্ধানে ছুঠতে শুরু করেছে বানভাসী জনমানুষ। যমুনার অকষ্মাৎ বানে নদীতীরের গবাদীপশু নিয়ে চরম বিপাকে পড়েছে খামারীরা। মাঠ তলিয়ে যাওয়ায় গো-সম্পদ সমৃদ্ধ এ জনপদে কাঁচাঘাসসহ গো-খাদ্যেরও তীব্র সংকট সৃষ্টি হয়েছে। বন্যাকবলিত এলাকার শিল্প প্রতিষ্ঠান, গো-খামার, তাঁত কারখানাসহ বিভিন্ন ধরনের প্রতিষ্ঠানে বানের পানি ঢুকতে শুরু করায় ওইসব প্রতিষ্ঠান ক্রমেই বন্ধ হতে শুরু করেছে। এতে মহা বেকায়দায় পড়েছে ওইসব প্রতিষ্ঠানের মালিকপক্ষ আর শ্রমিকদের পড়েছে মাথায় হাত। প্রতিদিনই অগণিত শ্রমিক বেকার হয়ে পড়ায় পরিবার পরিজন নিয়ে খেয়ে না খেয়ে তাদের দিন কাটাতে হচ্ছে। যমুনার বানের পানিতে নদী তীবরর্তী বিভিন্ন এলাকার গ্রামীণ জনপদ তলিয়ে যাওয়ায় বিভিন্ন গ্রামীণ এলাকার সাথে শহরের সড়ক যোগাযোগ ক্রমশই বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। নৌকা ও ভেলাই এসব এলাকার একমাত্র বাহন হিসাবে ব্যবহৃত হচ্ছে। শাহজাদপুর-কৈজুরী উচু সড়কের দুইপাশে বসবাসকারী হাজার হাজার সহায় সম্বলহীন উদ্বাস্তুদের ঘরেও বানের পানি ঢুকে পড়ায় তারা খেয়ে না খেয়ে দুর্বিসহ জীবন যাপন করছে। এছাড়া যমুনা নদীতে বানের পানিবৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় জামালপুর, সরিষাবাড়ী, সিরাজগঞ্জের কাজিপুর, চৌহালী, এনায়েতপুর, শাহজাদপুর, মানিকগঞ্জ ও টাঙ্গাইল জেলার যমুনা নদী তীরবর্তী বিস্তৃর্ণ এলাকার সার্বিক বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহতায় রূপ নিয়েছে । এতে বন্যা কবলিত বিস্তৃর্ণ এলাকার লাখ লাখ এলাকাবাসী আতঙ্কিত হয়ে চরম উদ্বেগ আর উৎকন্ঠায় প্রতিটি মুহুর্ত অতিবাহিত করছে।
শাহজাদপুর উপজেলার যমুনা তীরবর্তী কৈজুরী, সোনাতুনী, বানতিয়ার চর, জামিরতা, জগতলা, কাশিপুর এলাকা সরেজমিন পরিদর্শনকালে এলাকাবাসী জানায়, গত কয়েকদিনের বানের পানি মরা যমুনার দু’কূল ছাপিয়ে মাঠ, ঘাট, জনপদ ও আশেপাশের এলাকা, বাড়িঘর, স্কুল কলেজ, মাদরাসাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে বানের পানি  ঢুকে পড়েছে। যমুনার বানের পানি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ঢুকতে শুরু করায় কোমলমতি ছাত্র ছাত্রীরা ঝুঁকি নিয়ে বানের পানির মধ্য দিয়ে চলাচল করছে। যমুনার বানের পানিতে দু’কূল ছাপিয়ে চরাঞ্চলসহ বিভিন্ন এলাকায় ঢুবে গেছে অসংখ্য নলকূপ। ফলে এসব এলাকায় বিশুদ্ধ খাবার পানির সংকট ক্রমেই তীব্র আকার ধারণ করছে। দুষিত পানি পান করা ও বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করায় নানা পানিবাহিত রোগে আমজনতার আক্রান্তের হার উদ্বেগজনক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে।মরা যমুনায় শংকাজনক হারে বানের পানিবৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় যমুনা নদী তীরবর্তী এলাকা গাবতলী, সারিয়াকান্দি, জামালপুর, সিরাজগঞ্জের কাজিপুর, চৌহালী, এনায়েতপুর, শাহজাদপুর, মানিকগঞ্জ ও টাঙ্গাইল জেলার লাখ লাখ জনমানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে। যে হারে প্রতিদিন যমুনা নদীতে বানের পানি বৃদ্ধি পেয়ে রাক্ষুসী নদীবক্ষ ফুলে ফেপে উঠছে তাতে ওই পানিবৃদ্ধির হার আর দু’চারদিন অব্যাহত থাকলে নদী তীরবর্তী এসব এলাকায় মহাদুর্যোগাবস্থা নেমে আসবে বলে অভিজ্ঞ মহল জানিয়েছেন। মরা যমুনায় বান ডাকায় যমুনার শাখা নদী করতোয়া,বরাল, হুরাসাগরসহ বিভিন্ন নদীতেও বানের পানি দু’কূল ছাপিড়ে উপচে জনপদ প্লাবিত করায় ওইসব শাখানদী তীরবর্তী এলাকাবাসীর দুর্ভোগ,দুর্গতিও বহুগুনে বৃদ্ধি পেয়েছে। ইতিমধ্যেই শাহজাদপুরসহ যমুনা নদী তীরের পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন এলাকার কাঁচা পাঁকা সড়ক তলিয়ে গেছে।সবচেয়ে বেশী আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে যমুনা তীরবর্তী ও চরাঞ্চলের হৎদরিদ্র লাখ লাখ এলাকাবাসী। মরা যমুনা ফুঁসে রাক্ষুসী রূপ ধারন করায় শাহজাদপুর,সিরাজগঞ্জসহ যমুনা তীরের পার্শ্ববর্তী অঞ্চলগুলোর অগণিত হৎদরিদ্র জনমানুষের মধ্যে বিশুদ্ধ পানি ও তীব্র খাবার সংকট সৃষ্টি হয়েছে।এসব এলাকায় ব্যাপকহারে জরুরী ভিত্তিতে ত্রাণ তৎপরতা এখনই শুরু করা উচিৎ বলে বিজ্ঞ মহল মনে করছেন।

১৬-০৭-২০১৭ ০৮:০৩ অপরাহ্ন প্রকাশিত হয়েছে এবং 826 বার দেখা হয়েছে।

পাঠকের ফেসবুক মন্তব্যঃ

চৌহালী নিউজঃ সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

নির্বাচিত খবরসমুহ
শাহজাদপুর : আরো খরবসমুহ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • সর্বশেষ প্রকাশিত
ফেসবুকে চৌহালী নিউজঃ
চৌহালী নিউজঃ ফোকাস
বিজ্ঞাপন

স্পন্সরড অ্যাড

ভিজিটর সংখ্যা
100
২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০৭:০০ পূর্বাহ্ন